ফতুয়া সঙ্ক্রান্ত নস্টালজিয়া

ব্যাক ইন ২০০৪-২০০৭ সালের দিকে ট্রেন্ডি পোষাক ছিলো ফতুয়া। অনেক করম। অনেক ডিজাইনের। দেশিয় আর্ট, আল্পনা আর কারুকাজে ভরা। ইয়ং জেনারেশনের ছেলে কিংবা মেয়ে সবাই একই জিনিসই পরতো।

সেই সময় গুলোতে লুকিয়ে লুকিয়ে বাসায় না জানিয়ে সাভার থেকে নীলক্ষেতে যেতাম পুরনো বই ঘাটতে আর কিনতে। আশা যাওয়ার পুরো সময়টাই নানান ফতুয়া পরা তরুণ তরুণীদের দেখতে দেখতে যেতাম। একটা বৈশাকের মতো উৎসব ভাব থাকতো। মাঝে মনে হতো এইটাই যেন জাতীয় পোষাক। ফতুয়ার চল যাবে না।

তারপর কি করে যেন পরিবেশ ধুলোবালিময় হয়ে হতে হতে খুব অসহনশীল হয়ে উঠলো। ফতুয়া পরে চলা কষ্টকর হতে থাকলো, একটা সময় ট্রেন্ড চলে গেলো। এখন কেউ তেমন পরে না ফতুয়া। বাজারে দেশিয়ো ডিজাইনের বাহারি কালারফুল ফতুয়াও নেই।

এইবেলা এসে মনে হয় ওই সময়ের ফতুয়ার ট্রেন্ডটাই ছিলো বাংলাদেশের সেরা ইউনিসেক্স ড্রেস। যা বিরূপ পরিবেশের কারণে হারিয়ে গেছে। কবে আবার এইরকম নারী পুরুষ নির্বিশেষে পরার পোষাকের ট্রেন্ড আসবে কে জানে !

ওই টাইম ফ্রেমের সময়টা বেশ নস্টালজিক করে। সেখান থেকে পুরো দেশ-সমাজ ব্যবস্থা যেন কোন এক অজানা অসহিষ্ণুতার দিকে প্যারাডাইম শিফট নিয়েছে।

Leave a Reply

Close Menu